MCB Featured | Rohingya Crisis

0
(0)

come back with shorten url of this page:
myctgbangla.com/mcbfrc


This MCB Featured Page is Dedicated to ‘Rohingya Crisis’ | ✐Publish Your News, Views, Consciences, Etc on ‘Rohingya Crisis’ at MCB without SignUp ! Just LogIn with our open credentials, Select Category/Tag – ‘Rohingya Crisis‘ & Publish


ডিও লেটার পাবে রোহিঙ্গা ইস্যুতে সমর্থন দেয়া সব দেশ
0
(0)

রোহিঙ্গা ইস্যুতে যেসব দেশ বাংলাদেশকে সমর্থন দিয়েছে, সেসব দেশগুলোকে ধন্যবাদ জানিয়ে ডিও লেটার দেয়া হবে।

মঙ্গলবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে একথা জানানো হয়।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিসের (আইসিজে) রায়ে এসব দেশ কিছুটা হলেও নমনীয় হবে বলেও প্রত্যাশা করে সংসদীয় কমিটি।

বৈঠকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, রোহিঙ্গা ইস্যুতে ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিসে (আইসিজে) বাংলাদেশের পক্ষে রায় আসায় ওআইসি সদস্যভুক্ত দেশগুলোকে ধন্যবাদ জানানো হচ্ছে। বাংলাদেশকে সমর্থন দেয়ার জন্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী ধন্যবাদ জানিয়ে দেশগুলোকে ডিও লেটার দেবেন বলে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

জানা গেছে, রোহিঙ্গা ইস্যুতে কোন কোন দেশ বাংলাদেশকে সক্রিয় সমর্থন দিচ্ছে না- তা নিয়ে কমিটির বৈঠকে আলোচনা হয়। এ ধরনের ১২ থেকে ১৪টি দেশ চিহ্নিত করা হয়েছে। বৈঠকে কমিটি এই দেশগুলোর সঙ্গে আরও কূটনৈতিক তৎপরতা চালাতে বলেছে।

বৈঠকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়, সম্প্রতি তারা দূতাবাস অ্যাপ চালু করেছে। এই অ্যাপস থেকে ৭০ ধরনের সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে। ইতিমধ্যে এখানে দুই হাজারের মতো আবেদন হয়েছে। এর বেশিরভাগই সনদ প্রত্যায়ন। এর ফলে জনগণ ঘরে বসেই সুবিধা পাচ্ছে। এই অ্যাপকে জনপ্রিয় ও জনবান্ধব (ইউজার ফ্রেন্ডলি) করার পরামর্শ দিয়েছে কমিটি।

কমিটির সভাপতি ফারুক খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে কমিটির সদস্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন, মো. আবদুল মজিদ খান, মো. হাবিবে মিল্লাত ও নাহিম রাজ্জাক অংশ নেন।

source

41 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

‘Happiness and sadness always coexist’: Ai Weiwei’s first virtual reality artwork Omni
0
(0)

‘Happiness and sadness always coexist’: Ai Weiwei’s first virtual reality artwork Omni

Omni fuses together two films the artist has made, immersing viewers in a jungle full of elephants first and then in a refugee camp in Bangladesh. ‘I feel a lot of positive things about humanity even in the worst conditions. I don’t want to show that there is just sadness. Happiness and sadness always coexist,’ Ai says. The video was produced in collaboration with Acute Art, who work with artists to make virtual and augmented reality videos.

Guardian Culture

73 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

বাংলাদেশে আর থাকতে চায় না অনেক রোহিঙ্গা উদ্বাস্তু
0
(0)

বাংলাদেশে আর থাকতে চায় না অনেক রোহিঙ্গা উদ্বাস্তু

50 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

Ths MCB Featured Page is Dedicated to ‘Rohingya Crisis’ | ✐Publish Your News, Views, Consciences, Etc on ‘Rohingya Crisis’ at MCB without SignUp ! Just LogIn with our open credentials, Select Category/Tag – ‘Rohingya Crisis‘ & Publish

0
(0)

রোহিঙ্গা ইস্যুতে যেসব দেশ বাংলাদেশকে সমর্থন দিয়েছে, সেসব দেশগুলোকে ধন্যবাদ জানিয়ে ডিও লেটার দেয়া হবে।

মঙ্গলবার জাতীয় সংসদ ভবনে অনুষ্ঠিত পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠকে একথা জানানো হয়।

রোহিঙ্গা ইস্যুতে ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিসের (আইসিজে) রায়ে এসব দেশ কিছুটা হলেও নমনীয় হবে বলেও প্রত্যাশা করে সংসদীয় কমিটি।

বৈঠকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, রোহিঙ্গা ইস্যুতে ইন্টারন্যাশনাল কোর্ট অব জাস্টিসে (আইসিজে) বাংলাদেশের পক্ষে রায় আসায় ওআইসি সদস্যভুক্ত দেশগুলোকে ধন্যবাদ জানানো হচ্ছে। বাংলাদেশকে সমর্থন দেয়ার জন্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী ধন্যবাদ জানিয়ে দেশগুলোকে ডিও লেটার দেবেন বলে মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

জানা গেছে, রোহিঙ্গা ইস্যুতে কোন কোন দেশ বাংলাদেশকে সক্রিয় সমর্থন দিচ্ছে না- তা নিয়ে কমিটির বৈঠকে আলোচনা হয়। এ ধরনের ১২ থেকে ১৪টি দেশ চিহ্নিত করা হয়েছে। বৈঠকে কমিটি এই দেশগুলোর সঙ্গে আরও কূটনৈতিক তৎপরতা চালাতে বলেছে।

বৈঠকে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে জানানো হয়, সম্প্রতি তারা দূতাবাস অ্যাপ চালু করেছে। এই অ্যাপস থেকে ৭০ ধরনের সুবিধা পাওয়া যাচ্ছে। ইতিমধ্যে এখানে দুই হাজারের মতো আবেদন হয়েছে। এর বেশিরভাগই সনদ প্রত্যায়ন। এর ফলে জনগণ ঘরে বসেই সুবিধা পাচ্ছে। এই অ্যাপকে জনপ্রিয় ও জনবান্ধব (ইউজার ফ্রেন্ডলি) করার পরামর্শ দিয়েছে কমিটি।

কমিটির সভাপতি ফারুক খানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত বৈঠকে কমিটির সদস্য পররাষ্ট্রমন্ত্রী একে আবদুল মোমেন, মো. আবদুল মজিদ খান, মো. হাবিবে মিল্লাত ও নাহিম রাজ্জাক অংশ নেন।

source

41 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

0
(0)

‘Happiness and sadness always coexist’: Ai Weiwei’s first virtual reality artwork Omni

Omni fuses together two films the artist has made, immersing viewers in a jungle full of elephants first and then in a refugee camp in Bangladesh. ‘I feel a lot of positive things about humanity even in the worst conditions. I don’t want to show that there is just sadness. Happiness and sadness always coexist,’ Ai says. The video was produced in collaboration with Acute Art, who work with artists to make virtual and augmented reality videos.

Guardian Culture

73 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

0
(0)

বাংলাদেশে আর থাকতে চায় না অনেক রোহিঙ্গা উদ্বাস্তু

50 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

0
(0)

জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদের তৃতীয় কমিটিতে ‘মিয়ানমারের রোহিঙ্গা মুসলিম ও অন্য সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানবাধিকার পরিস্থিতি’ শীর্ষক একটি প্রস্তাব পাস হয়েছে ১৪০-৯ ভোটে। এটা নিয়ে তৃতীয়বারের মতো গৃহীত হল এ ধরনের প্রস্তাব।

এবারের প্রস্তাবে রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে কী কী পদক্ষেপ নিতে হবে তা স্পষ্টভাবে উল্লেখ করা হয়েছে। প্রস্তাবে জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদকে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে সুস্পষ্ট পদক্ষেপ নেয়ার আহ্বান জানানো হয়েছে, যা নিরাপত্তা পরিষদের ওপর সরাসরি চাপ সৃষ্টি করবে বলে মনে করা হচ্ছে।

দুঃখজনক হল, জাতিসংঘের সাধারণ পরিষদের তৃতীয় কমিটিতে যে প্রস্তাবটি বিপুল ভোটে গৃহীত হয়েছে, ৯টি দেশ, বিশেষত চীন ও রাশিয়া তার বিরুদ্ধে ভোট দিয়েছে এবং ভারত ভোটদানে বিরত থেকেছে। উল্লেখ করা যেতে পারে, চীন ও রাশিয়া এর আগেও এ ধরনের প্রস্তাবের বিপক্ষে ভোট দিয়েছিল। অর্থাৎ এটা এখন স্পষ্ট হয়েছে যে, চীন ও রাশিয়া রোহিঙ্গা সমস্যার সমাধান চাচ্ছে না। গত দুই বছরের অধিককাল থেকে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে রোহিঙ্গা ইস্যুটি ব্যাপকভাবে আলোচিত হচ্ছে। বিশ্বের প্রায় প্রতিটি রাষ্ট্র ও আন্তর্জাতিক সংস্থা রাখাইনে রোহিঙ্গা গণহত্যার নিন্দা জানিয়েছে এবং বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের স্বদেশে প্রত্যাবর্তনের ব্যাপারে একমত পোষণ করেছে। এমনকি জাতিসংঘের বিচারিক আদালতে (আইসিজে) রোহিঙ্গা গণহত্যার দায়ে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে ওআইসির সমর্থনে গাম্বিয়া মামলা করেছে এবং আন্তর্জাতিক অপরাধ আদালতে (আইসিসি) রোহিঙ্গা নিপীড়নের পূর্ণ তদন্ত শুরু হয়েছে।

এমন অবস্থায় চীন ও রাশিয়ার বিপক্ষে ভোট প্রদান এবং ভারতের ভোটদানে বিরত থাকার বিষয়টি আমাদের অবাক করে বৈকি। এই তিন দেশের সঙ্গে মিয়ানমারের সম্পর্ক ভালো যেমন, বাংলাদেশের সঙ্গেও তেমন ভালো সম্পর্ক রয়েছে। তাছাড়া রোহিঙ্গা ইস্যুটি একটি বড় ধরনের মানবিক বিষয়, যা ইতিমধ্যেই বিশ্বব্যাপী স্বীকৃত হয়েছে। রোহিঙ্গারা শুধু যে বাংলাদেশের ওপর সামাজিক ও অর্থনৈতিক চাপ সৃষ্টি করেছে তা-ই নয়, তাদের স্বদেশে প্রত্যাবর্তনের বিষয়টিও অতি জরুরি। ১১ লাখেরও বেশি রোহিঙ্গা মাসের পর মাস, বছরের পর বছর বাংলাদেশে অবস্থান করতে পারে না। গণহত্যা ও নিপীড়নের মুখে রোহিঙ্গাদের মানবিক কারণে বাংলাদেশে আশ্রয় দেয়া উচিত ছিল এবং সেটাই করা হয়েছে। কিন্তু এর মানে এই নয় যে, এই বোঝা অনন্তকাল ধরে বয়ে বেড়াতে হবে আমাদের।আমরা বন্ধুপ্রতিম রাষ্ট্র চীন, ভারত ও রাশিয়ার দৃষ্টিভঙ্গি পাল্টানোর অনুরোধ জানাব। আগামী দিনগুলোয় মিয়ানমারের ওপর কার্যকর চাপ সৃষ্টিতে বিশ্ব সম্প্রদায়ের সঙ্গে এই তিন দেশও যথাযথ ভূমিকা রাখবে বলে আমরা আশাবাদী হতে চাই।

Source

55 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

0
(0)

[facebook url=”https://www.facebook.com/priyankachopra/videos/10160569229500691/” /]

173512priyanka (1)

COSL-Content Origin Source Link >
==============================

You may improve this content here if you found any inappropriate or just add/edit for content quality issue,improve it by logging in with this following open credential –

mcb-log-in1Improve this content

==============================

Post Your News, Views, Conscience etc on MyCtgBangla .MCB

mcb-log-in1Post any other New Content

45 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

0
(0)
Post Your News, Views, Conscience etc on MyCtgBangla .MCB

mcb-log-in122154150_10155432296128941_2169490515378176629_n.jpg🙂 Please make sure this service remains a free forever service for you by visiting our this above & bellow sponsors, by the way- sponsor’s informative ad also inform you on latest trends. 🙂31416834_10155991982458941_9069138335326273536_n

priyanka-pm-20180524191551

 
COSL-Content Origin Source Link >
==============================

You may improve this content here if you found any inappropriate or just add/edit for content quality issue,improve it by logging in with this following open credential –

mcb-log-in1Improve this content

==============================

Post Your News, Views, Conscience etc on MyCtgBangla .MCB

mcb-log-in1Post any other New Content

 

41 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

0
(0)

Post Your News, Views, Conscience etc on MyCtgBangla .MCB

mcb-log-in1

22154150_10155432296128941_2169490515378176629_n.jpg🙂 Please make sure this service remains a free forever service for you by visiting our this above & bellow sponsors, by the way- sponsor’s informative ad also inform you on latest trends. 🙂

kamal-0-20180415160522.jpg

মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা ১১ লাখ রোহিঙ্গার মধ্যে এক পরিবার ফিরিয়ে নেয়া হাস্যকর বলে মন্তব্য করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল।

রোববার রাজধানীর মতিঝিলে ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি (ডিসিসিআই) আয়োজিত এক মত বিনিময় সভা শেষে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি একথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, ১১ লাখ রোহিঙ্গাকে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে রেজিস্ট্রেশন করে আইডি কার্ড দেয়া হয়েছে। এদের মধ্যে মিয়ানমার একটি পরিবারকে নিয়ে গেছে, যা হাস্যকর। যাদের ফিরিয়ে নেয়া হয়েছে তারা বাংলাদেশে প্রবেশ করেননি। তারা নো ম্যান্স ল্যান্ডে রয়েছেন; যেটি মিয়ানমারের সীমা রেখার ভিতরে। এখানে (নো ম্যান্স ল্যান্ডে) মোট ৬ হাজারের বেশি রোহিঙ্গা রয়েছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসির বাসায় ভাঙচুর ও হামলার বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, যেই শিক্ষককে সবচেয়ে বেশি শ্রদ্ধা করি সেই ভিসির বাসায় ভাঙচুর ও লুটপাট হবে, এ দৃশ্য আমরা বিশ্বাস করতে পারিনি। এ ঘটনায় মোট পাঁচটি মামলা হয়েছে, যা তদন্তাধীন। তদন্ত শেষে এ বিষয়ে জানানো হবে।

এর আগে শনিবার পাঁচ সদস্যের এক রোহিঙ্গা পরিবারকে প্রত্যাবাসন ক্যাম্পে নিয়ে প্রয়োজনীয় উপকরণ ও ‘আইডি কার্ড’ দেয়ার ছবি প্রকাশ করে মিয়ানমার।

 
 

Alert-IconMyCtgBangla সংবিধান ও সংবেদনশীল জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। MyCtgBangla কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন। Circle-icons-mic.svg.png

43 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

0
(0)


 

54 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

0
(0)

115730UN.jpg

Post Your News, Views, Conscience etc on MyCtgBangla .MCB

mcb log in1.png

Post Your News, Views, Conscience etc on MyCtgBangla.MCB

মিয়ানমারের সেনাপ্রধান জেনারেল উ মিন অং হাইং সোমবার দেশটির এক সমাবেশে রোহিঙ্গাদের ‘বাঙালি’ বলে অভিহিত করেন। মিয়ানমারের অন্যান্য জাতিগোষ্ঠীর সঙ্গে রোহিঙ্গাদের কোনো মিল নেই বলে মন্তব্য করেন তিনি। তার ওই মন্তব্যের কঠোর সমালোচনা করেছেন জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেস। তিনি বলেন, ‘জেনারেল উ মিন অং হাইংয়ের বক্তব্যে আমি স্তম্ভিত।’

জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্টোনিও গুতেরেস জানান, রোহিঙ্গা অধ্যুষিত গ্রামগুলোতে সেনা মোতায়েন করা নিয়ে জেনারেল উ মিন অং হাইংয়ের বক্তব্যের খবরে তিনি স্তম্ভিত হয়েছেন।

মিয়ানমারে বিভিন্ন জাতিগোষ্ঠীর মধ্যে সম্প্রীতি বজায় রাখতে এবং সাম্প্রদায়িক উত্তেজনা ছড়ানোর বিরুদ্ধে ঐক্যবদ্ধ অবস্থান নিতে দেশটির নেতাদের প্রতি আহবান জানান তিনি।

এর আগে, সোমবার মিয়ানমারের উত্তরাঞ্চলীয় কাচিন রাজ্যে এক সমাবেশে সেনাপ্রধান উ  মিন রোহিঙ্গাদের ‘বাঙালি’ বলে অভিহিত করেন। তিনি বলেন, ‘রোহিঙ্গাদের সঙ্গে মিয়ানমারের জাতিগোষ্ঠীগুলোর কোনোধরনের সাংস্কৃতিক মিল নেই।’

প্রসঙ্গত, মিয়ানমারে রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে গত আগস্ট মাস থেকে ব্যাপক সামরিক অভিযান শুরুর পর ৭ লক্ষাধিক রোহিঙ্গা বাংলাদেশে পালিয়ে আসে। মিয়ানমার সেনাবাহিনীর এ অভিযানকে জাতি নিধন অভিযান হিসেবে অভিহিত করেছে জাতিসংঘ।

সূত্র: এএফপি

 
 

Alert-IconMyCtgBangla সংবিধান ও সংবেদনশীল জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। MyCtgBangla কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন। Circle-icons-mic.svg.png

 

38 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

0
(0)

034451osu3vj5v.jpg

রোহিঙ্গা সংকট মোকাবেলায় আগামী ১০ মাসে ৯৫ কোটি ১০ লাখ মার্কিন ডলারের (প্রায় ৭,৭৯৮ কোটি ২০ লাখ টাকা) তহবিল জোগান দিতে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি আবেদন জানিয়েছে জাতিসংঘ। গতকাল শুক্রবার সুইজারল্যান্ডের জেনেভায় জাতিসংঘের সংস্থাগুলো তাদের এনজিও অংশীদারদের সঙ্গে নিয়ে এই আবেদন জানায়।

জেনেভায় জাতিসংঘ দপ্তরে জাতিসংঘের শরণার্থীবিষয়ক হাইকমিশনার (ইউএনএইচসিআর) ফিলিপ্পো গ্র্যান্ডি, আন্তর্জাতিক অভিবাসন সংস্থার (আইওএম) মহাপরিচালক উইলিয়াম ল্যাসি সুইং এবং বাংলাদেশে জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়ক মিয়া সিপ্পো তহবিলের পক্ষে বক্তব্য দেন।

ওই অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহরিয়ার আলম রোহিঙ্গাদের বিশ্বের সবচেয়ে নিপীড়িত সংখ্যালঘু গোষ্ঠী হিসেবে উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, মিয়ানমারে অনুকূল পরিবেশ সৃষ্টি হলেই কেবল এ সমস্যার সমাধান সম্ভব হবে। এ লক্ষ্যে বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের অব্যাহত সম্পৃক্ততা প্রত্যাশা করে।

ইউএনএইচসিআর ফিলিপ্পো গ্র্যান্ডি বলেন, ‘এ সংকটের সমাধান মিয়ানমারেই। সেখানে রোহিঙ্গাদের ফেরার মতো পরিবেশ অবশ্যই সৃষ্টি করতে হবে। তবে এর আগে রোহিঙ্গাদের জরুরি চাহিদা মেটাতে সহযোগিতার আবেদন করছি। এই চাহিদা বিশাল।’

আইওএম মহাপরিচালক উইলিয়াম ল্যাসি সুইং বলেন, বাংলাদেশে আশ্রিত রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর চাহিদা ও ঝুঁকি বিশাল। গত বছর তহবিল গড়তে অনেক সরকার আন্তরিকভাবে সহযোগিতা করেছে। এবারও রোহিঙ্গাদের সম্মান, সুরক্ষা নিশ্চিত করা এবং সহযোগিতা অব্যাহত রাখতে বড় পরিসরে ভূমিকা রাখা প্রয়োজন।

বাংলাদেশে জাতিসংঘের আবাসিক সমন্বয়ক মিয়া সিপ্পো বলেন, ‘আমাদের ভুলে গেলে চলবে না এই সংকটে সবচেয়ে বড় দাতা বাংলাদেশ। প্রয়োজনে প্রথম সাড়া দেওয়া, জমি দেওয়া, সীমান্ত খোলা রাখা, আশ্রয় দেওয়া, সড়ক নির্মাণ, বিদ্যুত্ অবকাঠামো সম্প্রসারণ, খাদ্যের জোগান, শিবিরের শৃঙ্খলা বজায় রাখতে বেসামরিক কর্মকর্তা, পুলিশ, সেনাবাহিনীকে দায়িত্ব দেওয়া—সব কিছু করেছে বাংলাদেশ। এই সংকটে সবচেয়ে বড় দাতা বাংলাদেশের জনগণ ও সরকার।’

ইউএনএইচসিআর ও আইওএম এক যৌথ বিবৃতিতে বলেছে, প্রায় ৯ লাখ রোহিঙ্গা এবং তাদের আশ্রয় দিয়ে ঝুঁকিতে থাকা তিন লাখ ৩০ হাজারেরও বেশি বাংলাদেশির জরুরি প্রয়োজন মেটাতেই এ তহবিল প্রয়োজন। রোহিঙ্গা ঢল শুরু হওয়ার পর গত কয়েক মাসে এটি বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুত বর্ধমান ‘শরণার্থী সংকটে’ পরিণত হয়েছে। গত ২৫ আগস্ট থেকে প্রায় ছয় লাখ ৭১ হাজার রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসেছে।

কুতুপালং-বালুখালী শিবিরকে বিশ্বের সর্ববৃহত্ ও সবচেয়ে ঘনবসতিপূর্ণ ‘শরণার্থী বসতি’ হিসেবে জাতিসংঘের সংস্থাগুলো উল্লেখ করেছে।

43 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!


246 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!