Welcome To MCB

4.4
(10)

Publish News, Views, Consciences, Etc. 

mcb post icon

সু চির কাছে রোহিঙ্গাদের কথা জানতে চাইলেন ট্রুডো
0
(0)

রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় উপদেষ্টা অং সান সু চির সঙ্গে ৪৫ মিনিটের বৈঠক করেছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো। জাতিগত নিধনের শিকার পৃথিবীর সবথেকে ওই নিপীড়িত জনগোষ্ঠীর খোঁজ-খবর নিতে ভিয়েতনামে ওই বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়। সেখানে  অনুষ্ঠিতব্য অ্যাপেক সম্মেলনে অংশ নিতে সেখানে অবস্থান করছেন দুই নেতা। বিভিন্ন কানাডীয় সংবাদমাধ্যম জানিয়েছে, বৈঠকে রোহিঙ্গা নিপীড়নের প্রশ্নে সু চির অবস্থান জানতে চেয়েছেন ট্রুডো। নিপীড়ন বন্ধ না হওয়ার কারণও জানতে চেয়েছেন তিনি।  একইসঙ্গে সংকট উত্তোরণের পথ নিয়েও কথা বলেছেন কানাডার প্রধানমন্ত্রী । .অং সান সু চি ও  জাস্টিন ট্রুডো

কানাডার বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা যায়, রাখাইনে সহিংসতা ও নিপীড়নের শিকার হয়ে প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীকে নিয়ে সৃষ্টি হওয়া মানবিক সংকটের সম্ভাব্য সমাধানের উপায় নিয়ে কথা বলতে ৪৫ মিনিটের এই বৈঠকের আয়োজন করা হয়। মিয়ানমারে ট্রুডোর বিশেষ দূত বব রে বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন। তিনি নিজেও এর আগে রোহিঙ্গাদের উপর নির্যাতনের দৃশ্য দেখে গেছেন এবং ট্রুডোকে সেসব বিষয়ে অবহিত করেছেন।

ট্রুডোর বিশেষ দূত বব রে জানান: রোহিঙ্গাদের উপর চলমান নিপীড়ন বন্ধ এবং তারা নিজ দেশ থেকে যেসব কারণে পালিয়ে যেতে বাধ্য হচ্ছেন, তা নিয়ে প্রধানমন্ত্রী ট্রুডো দ্বিধাহীনভাবে সু চির সঙ্গে কথা বলেছেন। তিনি বলেন, ” আমি ব্যক্তিগতভাবে মনে করি কানাডার প্রধানমন্ত্রীর কাছে থেকে সরাসরি এসব কথা শোনা অত্যন্ত জরুরি ছিল সু চির জন্য। আমি আরও মনে করি যে, এ বিষয়ে তার (সু চির) বক্তব্য শুনতে পাওয়াও গুরুত্বপূর্ণ। সু চি মনে করছেন, রোহিঙ্গা সংকট সমাধানের জন্য তিনি সর্বোচ্চ চেষ্টা করছেন। আমার বিবেবচনায় এই চেষ্টা আরও করতে হবে এবং আরও করা যেত বলাটাই সমীচীন।”

রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে জাতিসংঘের চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণকারী সভায় প্রস্তাব উঠানো হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন: শুধু কানাডাই এমনটা অনুভব করছে তা নয়, এসব প্রশ্ন উত্থাপনের ক্ষেত্রে আমরা সংখ্যালঘু নই।

নির্যাতন ও নিপীড়নের শিকার হয়ে ইতোমধ্যে ছয় লাখের বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে এসেছেন। কক্সবাজারের অস্থায়ী ক্যাম্পগুলোতে মানবেতর জীবন যাপন করছেন তারা। জাতিসংঘের পক্ষ থেকে রোহিঙ্গাদের উপর চলমান নিপীড়নকে ‘টেক্সট বইয়ে অন্তর্ভুক্ত করার মতো গণহত্যার দৃষ্টান্ত’ বলে উল্লেখ করা হয়। তবে মিয়ানমার সরকার সংকটের সমাধান না করে নানাভাবে রোহিঙ্গাদের উপর দোষ চাপাচ্ছেন। রোহিঙ্গা ইস্যু নিয়ে কার্যত নীরব থাকায় সারা বিশ্বের মানবাধিকার সংগঠন, আন্তর্জাতিক সংস্থা ও জাতিসংঘের বিভিন্ন সংস্থা থেকে নোবেল বিজয়ী সু চির সমালোচনা হচ্ছে।

গত সেপ্টেম্বরে সু চির নেতৃত্ব নিয়ে প্রশ্ন উঠলে তখনও তার সঙ্গে ফোনে কথা বলেছিলেন ট্রুডো। সেসময় রাখাইনে বিশেষ দৃষ্টি দিতে সু চিকে অনুরোধ করেছিলেন তিনি। ফোনে কথা বলার পর রোহিঙ্গা জনগোষ্ঠীর ওপর হামলা অবিলম্বে বন্ধ করতে দেশটির ক্ষমতাসীন দলের নেতা অং সান সু চির কাছে পাঠানো এক চিঠিতে আহ্বান জানিয়েছিলেন কানাডীয় প্রধানমন্ত্রী। ওই চিঠিতে তিনি বলেছিলেন: অবিলম্বে সংখ্যালঘু রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর সন্ত্রাস বন্ধ করে স্বাধীন এবং নিরপেক্ষ তদন্তের মাধ্যমে অপরাধীদের আইনের আওতায় আনুন।

15 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

‘শেষ পর্যন্ত আপনি হিন্দুই হয়ে গেলেন’

0
(0)

1510290563.jpgপতৌদি পরিবারের মেয়ে। আর অভিনেতা কুণাল খেমুর স্ত্রী। তাই এখন তাঁকে সোহা আলি খান খেমু বললেও বেশি বলা হয় না। কিন্তু, এবার সাইফ আলি খানের বোন সারা আলি খানকে কটাক্ষ করা হল সোশ্যাল সাইটে।
সম্প্রতি নিজের বেবি শাওয়ার অর্থাত সাধ-এর অনুষ্ঠানের ছবি পোস্ট করেছিলেন সোহা। সেখানে গোলাপি রঙের শাড়ি পরে, খোপায় মালা লাগিয়ে, কপালে টিপ পরে যেন আরও সুন্দরি লাগছিল কারিনা কাপুর খানের ননদকে। স্বামী কুনাল খেমুর পাশে দাঁড়িয়ে সেই ছবি সোশ্যাল সাইটে পোস্টও করেন সোহা। আর এরপরই সোহাকে কটাক্ষ করতে শুরু করেন বেশ কিছু মানুষ।
কেন শাড়ি পড়েছেন এবং কেন তাঁর ছবিতে ঈদ-এর কথা উল্লেখ করেননি, সে বিষয়ে কটাক্ষ করা হয় সোহাকে। ‘শেষ পর্যন্ত আপনি হিন্দুই হয়ে গেলেন’ বলেও বলিউডের ওই অভিনেত্রীকে কটাক্ষ করা হয়। যদিও কারও কোনও কটাক্ষের জবাবই দেননি সোহা।
বেবি শাওয়ারের অনুষ্ঠান বলে কথা। আর কটাক্ষের মাঝেও মুখে খুলুপ এঁটে, সেইদিনের শুধু ছবিই পোস্ট করেছেন শর্মিলা ঠাকুরের কন্যা।

14 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!

এবার জ্যামের খবর পাওয়া যাবে গুগল ম্যাপে

0
(0)

1510379763.jpgরাজধানীর জ্যামের অবস্থা জানাবে গুগল ম্যাপ। বিশ্বের সেরা সার্চ ইঞ্জিনটি লাল, কালচে লাল, সবুজ, হলুদ এই চারটি সংকেতের মাধ্যমে এ তথ্য দিচ্ছে।

সবুজের অর্থ রাস্তা স্বাভাবিক, হলুদ মানে কিছু গাড়ি আছে, কমলার মানে হালকা জ্যাম ও লাল মানে রাস্তায় প্রচন্ড জ্যামে দাঁড়িয়েছে আছে গাড়ি। ৯ নভেম্বর বিকেল থেকে ঢাকার রাস্তার জন্য চালু হয়েছে এ ম্যাপ।

শুক্রবার (১০ নভেম্বর) গুগল ম্যাপস ব্রাউজ করে রাজধানীর জ্যামের চিত্র প্রকাশের প্রমাণ পাওয়া যায়।

তবে গুগল ম্যাপ এ জ্যামের খবর জানতে অবশ্যই স্মার্টফোন এবং সঙ্গে ইন্টারনেট সংযোগ থাকতে হবে। গুগল সার্চ ইঞ্জিনে গুগল ম্যাপ সার্চ দিলে এ তথ্য জানা যাবে।

এছাড়াও গুগল ম্যাপস অপশন চালু করলে ডিভাইসের নোটিফিকেশনেও কিছুক্ষণ পরপর রাস্তার গাড়ি চলাচলের আপডেট দেখা যাবে। তবে ছোট বা অপ্রচলিত রাস্তার জন্য সেবাটি এখনো পাওয়া যাবে না।

এর আগে, চলতি বছরের ১৯ জুলাই বিশ্বব্যাংকের এক প্রতিবেদনে বলা হয়, রাজধানী ঢাকায় গত ১০ বছরে যান চলাচলের গড় গতি প্রতি ঘণ্টায় ২১ কিলোমিটার থেকে ৭ কিলোমিটারে নেমে এসেছে। অথচ দেখা যায়, পাঁয়ে হেটে চলার গড় গতি হচ্ছে ৫ কিলোমিটার। এই যানজটে দিনে প্রায় ৩২ লক্ষ কর্মঘণ্টা নষ্ট হচ্ছে।

এ বিষয়ে বিশ্বব্যাংক আরো জানান, ১৯৯৫ থেকে ২০০৫ সালের মধ্যে যান চলাচল ১৩৪ শতাংশ, ঢাকার রাস্তা ৫ শতাংশ, জনসংখ্যা ৫০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়েছে।

9 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!


No posts found.

*please excuse the google ads or other sponsors ads. Although Ad may show something Awesome as somewhat surprise ! 



Amazon Audible: Experience the World’s Largest Library of Audiobooks.

mcb post icon
: ) Play with MCB Posts 
as if those are your posts !

Power to Edit/Add/Improve any Post ! 

Visit  MCB Policy





My Page:

6,231 views

How useful was this post?

Click on a star to rate it!